Breaking News
uttarancholnews24

‘গোপন’ মহাদেশের সন্ধান লাভ !

ডেস্ক রিপোর্ট : সম্প্রতি একটি ‘গোপন’ মহাদেশের সন্ধান লাভ করেছেন বলে দাবি করেছেন গবেষকরা। মহাদেশটি আকারে গ্রিনল্যান্ডের সমান। তবে এর বেশিরভাগ অংশই ভূমধ্যসাগরের তলদেশে রয়েছে বলে দাবি গবেষকদের। সম্প্রতি নেদার‍ল্যান্ডসের ইউট্রেক্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় এ তথ্য জানা গেছে।

চলতি মাসে ‘গন্ডোয়ানা রিসার্চ’ জার্নালে গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে।

গবেষকরা বলছেন, ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের জটিল ভূতত্ত্বের বিবর্তনের ইতিহাস পুননির্মাণ করতে গিয়ে তাঁরা এক ‘গোপন’ মহাদেশের সন্ধান পেয়েছেন যার বিস্তৃতি স্পেন থেকে ইরান পর্যন্ত। তবে এই মহাদেশের বেশিরভাগটাই এখন সমুদ্রের তলদেশে রয়েছে।

গবেষকরা জানান, সেই ‘লুকিয়ে থাকা’ মহাদেশটির নাম আটলান্টিস নয়; তার নাম গ্রেটার আড্রিয়া।

গবেষকদের ধারণা, এই মহাদেশের আয়তন গ্রিনল্যান্ডের সমান। ১৪ কোটি বছর আগে উত্তর আফ্রিকা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছিল মহাদেশটি। তারপর দক্ষিণ ইউরোপের তলায় ঢুকে যায়।

ওই গবেষণার অন্যতম গবেষক ছিলেন নেদার‍ল্যান্ডসের ইউট্রেক্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্লোবাল টেকটনিক্স ও প্যালিওজিয়োগ্রাফির অধ্যাপক ডাইউয়ি ভন হিনসবার্গেন।

তিনি বলেন, আটলান্টিসের কথা ভুলে যান। ওই হারিয়ে যাওয়া মহাদেশ গ্রেটার আড্রিয়ার কথা না জেনেই প্রতি বছর সেখানে সময় কাটিয়ে যান হাজার হাজার পর্যটক।

হিনসবার্গেন বলেছেন, বেশিরভাগ পর্বতমালা যা নিয়ে আমরা এতদিন পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়েছি, তাদের উৎপত্তি একটি মহাদেশ থেকেই। পরে উত্তর আফ্রিকা থেকে ২০ কোটি বছরেরও আগে সেগুলো আলাদা হয়ে যায়। সেই মহাদেশের একমাত্র অবশিষ্ট বলতে একটি সারি, যা তুরিন থেকে অ্যাড্রিয়াটিক সাগরের তলদেশ দিয়ে বিস্তৃত। এই মহাদেশে থেকেই তৈরি হয়েছে ইতালি।

তিনি জানান, এই অঞ্চলটিকে ভূতত্ত্ববিদরা আড্রিয়া নামেই জানেন। আর তাই সদ্য আবিষ্কৃত ওই হারিয়ে যাওয়া মহাদেশকে গ্রেটার আড্রিয়া নাম দিয়েছেন তাঁরা।

মহাদেশ গঠনের রহস্যকে প্লেট টেকটনিক থিওরি দিয়ে ব্যাখ্যা করেন গবেষকরা। কিন্তু পৃথিবীর বাকি অংশের ভূতাত্ত্বিক গঠনে জন্য যেভাবে সেটির ব্যাখ্যা দেওয়া হয়, তুরস্ক ও ভূমধ্যসাগরের ক্ষেত্রে বিষয়টি অনেকটাই আলাদা।

এ বিষয়ে হিনসবার্গেন বলেন, আলাদা মহাদেশ হিসেবে গ্রেটার আড্রিয়ার ‘জন্ম’ প্রক্রিয়ার শুরু প্রায় ২৪ কোটি বছর আগে।

সূত্র : সিবিএস নিউজ, এই সময়